আসুন,ঈমানের বীজ বপন করি। মোহাম্মদ মিজানুর রহমান

231

 

এ.বি.এম.সিদ্দীকুল্যাহ সাগর
নোয়াখালী জেলা প্রতিনিধিঃ

আলহামদুলিল্লাহ :

সুরা ফাতিহার প্রথম বাক্যের এই অংশটি আমাদের যাপিত জীবনের অংশ। খুব বড় খবরেও আলহামদুলিল্লাহ বলি,লিখি। আবার নৈমিত্তিক সুখের আলাপনেও যুৎসই এই শব্দদ্বয়। সুরা ফাতিহারই শ’দুয়েক তাফসির গ্রন্থ আছে বিখ্যাত৷ আসলে কেউ যদি এই সুরারই শরাব পান করতে পারে সর্বান্তকরণে তার জন্যে হেদায়াত সহজ সাবলীল ও স্বতঃস্ফূর্ত হয়ে যাওয়ার কথা। করোনা তো কাল(কালো নয়) হয়ে দাঁড়িয়েছে আমাদের জন্য।কিন্তু সেই কাল আমাদের পাপের তুলনায় নস্যি,সেইজন্য বলি আলহামদুলিল্লাহ…হামদান কাসিরান… তায়্যিবান…মুবারাকান ফিহি।

বাংলাদেশের জনৈক জননন্দিত আলেম সুরা ফাতিহার “ইয়্যাকা না’বুদু ও ইয়্যাকা নাস্তায়িন।” এর তাফসির করতে গিয়ে বলেছেন, কত শতবার এইটার ব্যাখ্যা দিয়েছি।কিন্তু মন ভরে নি। একবার ক্বাবা শরিফের ইমামের পেছনে নমাজ পড়ছিলাম। রমাদ্বানের ২৬ তারিখ দিবাগত রাত ছিলো সেটি। ইমাম সাহেব বললেন, “ইয়্যাকা না’বুদু…আমরা শুধু তোমারই ইবাদত/দাসত্ব/গোলামি করি।….তিনি কাঁদছেন। পেছনে তিরিশ লক্ষ মানুষ হাউমাউ করে কাঁদছে। পাক্কা সাত মিনিট ধরে কান্নার রোনাজারিতে ক্বাবার চত্ত্বর প্রকম্পিত হচ্ছে…।ইমাম আবার বললেন, ” ও ইয়্যাকা নাস্তায়িন।”আমরা তোমারই কাছে সাহায্য চাই…।

তিরিশ লক্ষ মুসল্লির গগনবিদারী কান্নার হুঙ্কারে সেদিন বুঝেছি, আমরা কার ইবাদত করি,আর কার কাছেই বা সাহায্য চাই…। আমার চারযুগের তাফসিরের অভিজ্ঞতাকে সেই সে সাতমিনিট বদলে দিয়েছে যোগ করেন সেই আলেমে দ্বীন। আজকের বিপন্ন বিধ্বস্ত বিপদাপন্ন ভয়াল বাংলাদেশে কে কাকে সাহায্য করবে?? উন্নত পিপিই,উজ্জ্বল মাস্ক,নির্ভেজাল ঔষধ,অক্সিজেনের পাইপ,ভেন্টিলেটরের সুলভতা? প্রশিক্ষিত ডাক্তার,আন্তরিক সেবিকা,মানবতাবাদী প্রশাসন,উদ্যোগী সরকার?

এই বিশ্বমারীর স্রষ্টা যিনি তার হাতেই একক কর্তৃত্ব সবকিছুর। এই উপলব্ধি এখনো যাদের হয় নি,তাদের সঙ্গে তর্ক করার কী খুব প্রয়োজন। প্রতিদিন মৃত্যুর সংবাদে যে আমার নামটি যুক্ত হয় নি,সংক্রমণ যে একেবারে পাশের দালানেও নক করে,আমার দোরে হানা দেয় নি সেইজন্য কী আলহামদুলিল্লাহ অনিবার্য নয়?? ধরুন,কত পার্সেন্ট মানুষ মানে কোভিডের স্রষ্টা আল্লাহ? আমার ধারণা,৯৯.৯৯%মানুষই মানে এটা মহামহিম বিধাতার অননুমেয় লীলা। যেমনটা নজরুল বলেছেন,

“খেলিছো এই বিশ্ব লয়ে বিরাট শিশু আনমনে….।’

আমরা কেউই আল্লাহকে দোষারোপ করবার সাহস করছি না কেন!!!এই প্রশ্নই যে উদ্রেক হচ্ছে না মনে সেটাই তো আল্লাহর অসীম কুদরত। আসুন না,সব কুদরতের একক মালিক আল্লাহকে আজ থেকে নতুন করে ভাবতে শিখি। কত জ্ঞানই তো নিলেন। তার প্রেরিত মহাগ্রন্থের শুধু প্রথম সুরাটা বুঝুন একবার। একবার বলুন আমার জীবন মরণ সুখ স্বাচ্ছন্দ্য সবই তারই অদৃশ্য কুদরতের উপর নির্ভর। দেখবেন,জীবনের পালে নতুন হাওয়া।

আলহামদুলিল্লাহ। করোনা,আমার মুখের আকার পরিবর্তন করেছে।আপনিও শামিল হোন,ভেতর থেকে তৃপ্তিবোধ করবেন।করবেনই।দু’পাঁচ টাকার জিলিট ব্লেডে স্মার্টনেস থাকে না! স্মার্ট মানে সময়ানুগ সিদ্ধান্ত গ্রহণে আপনি কতটা সাহসী ও স্বতঃস্ফুর্ত….। একভাই নক করে বলেছেন, আমার লেখায় পাঠক আলোক খোঁজে,অনুপ্রাণিত হয়…।নিরুৎসাহের কথা যেন না লিখি। তাঁকে সালাম ও শ্রদ্ধা। আমার পরিবারে গত তিন মাস কোন জ্বর নেই,সর্দি নেই। বাচ্চাগুলো টানা এত দিন কখনো সুস্থ ছিলো না….আলহামদুলিল্লাহ আলহামদুলিল্লাহ আলহামদুলিল্লাহ। আসুন, ঈমানের নতুন বীজ বপন করি,নতুন বীজতলা বানাই। আল্লাহ তায়ালার সার্বভৌমত্বে নিঃশর্তে আত্মসমর্পণ করি।

লেখক:- মোহাম্মদ মিজানুর রহমান
সহকারী অধ্যাপক
মির্জাপুর ক্যাডেট কলেজ,টাঙ্গাইল।